শিরোনাম
 নায়করাজ রাজ্জাক আর নেই  বন্যার্তদের জন্য অস্ট্রেলিয়ার সমবেদনা  রীড ফার্মা: স্বাস্থ্য সচিবকে হাইকোর্টে তলব  ৩৮ ঘণ্টা পর ঢাকার সঙ্গে উত্তর-দক্ষিণের ট্রেন চালু
প্রকাশ : ১২ আগস্ট ২০১৭, ২০:০২:৫৩ | আপডেট : ১২ আগস্ট ২০১৭, ২১:৩৮:৫০

আপন জুয়েলার্সের বিরুদ্ধে মুদ্রাপাচার আইনে ৫ মামলা

সমকাল প্রতিবেদক
আপন জুয়েলার্সের প্রায় ১৫ মণ স্বর্ণালঙ্কার ও হীরা আটকের ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে মুদ্রাপাচার প্রতিরোধ আইনে পাঁচটি মামলা হয়েছে।

শুল্ক গোয়েন্দা অধিদফতরের পক্ষ থেকে শুক্রবার গুলশান, ধানমন্ডি, রমনা ও উত্তরা থানায় মামলাগুলো করা হয় বলে অধিদফতরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

এসব মামলায় আপন জুয়েলার্সের মালিক তিন ভাই দিলদার আহমেদ সেলিম, গুলজার আহমেদ ও আজাদ আহমেদকে আসামি করা হয়েছে।

গত ২৮ মার্চ রাতে রাজধানীর বনানীর 'দ্য রেইনট্রি' হোটেলে পূর্বপরিচিত সাফাত আহমেদের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে গিয়ে রাতভর ধর্ষণের শিকার হন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রী।

ধর্ষণের ঘটনার ভিডিওচিত্র ধারণ করে ঘটনার এক নম্বর আসামি আপন জুয়েলার্সের অন্যতম মালিক দিলদার হোসেনের ছেলে সাফাতের গাড়িচালক বিল্লাল হোসেন। আরেক ধর্ষক নাঈম আশরাফ।

দুই ধর্ষকের সহযোগী সাদমান সাকিফ 'রেগনাম গ্রুপের' ব্যবস্থাপনা পরিচালক। অপর আসামি আবুল কালাম আজাদ হলো সাফাতের দেহরক্ষী। ধর্ষক ও তাদের সহযোগীদের অব্যাহত হুমকি ও লোকলজ্জায় এক মাসের বেশি সময় পর ৬ মে দুই ছাত্রী বনানী থানায় মামলা করেন।

ওই ঘটনার পর দেশজুড়ে তোলপাড় শুরু হলে আসামিদের গ্রেফতার করে রিমান্ডে নেওয়া হয়। পরে আপন জুয়েলার্স থেকে জব্দ করা হয় ১৫ দশমিক ৩ মণ সোনা এবং ৭ হাজার ৩৬৯টি হীরার অলঙ্কার। এরপর এগুলো গত জুনে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে পাঠায় শুল্ক গোয়েন্দা অধিদফতর।

মজুদ এসব সোনা-গহনার বৈধতার কোনো কাগজপত্র দেখাতে না পারায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের নির্দেশনায় আপন জুয়েলার্সের বিরুদ্ধে এই মামলাগুলো করা হয়েছে বলে শুল্ক গোয়েন্দা অধিদফতর জানিয়েছে।

আরও পড়ুন
মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved