শিরোনাম
 সুন্দরবনে র‍্যাবের সঙ্গে বনদস্যুদের গোলাগুলি  একের পর এক সিইও পদত্যাগ করায় ট্রাম্পের ব্যবসায়ী পরিষদ বিলুপ্ত
প্রকাশ : ০৭ আগস্ট ২০১৭, ২৩:২৪:০২ | আপডেট : ০৭ আগস্ট ২০১৭, ২৩:২৫:৩১

শিবিরের হামলায় গুরুতর জখম ছাত্রলীগের দুই কর্মী

সিলেট ব্যুরো
সিলেট নগরীর সোবহানীঘাটে শাহীন আহমদ ও আবুল কালাম আসিফ নামে ছাত্রলীগের দুই কর্মীকে কুপিয়ে জখম করেছে শিবির কর্মীরা। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর শাহীনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

হামলায় শাহীনের ডান হাত শরীর থেকে প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। এ ছাড়া তার বাঁ হাত ও দুই পায়ের বিভিন্ন স্থানেও কুপিয়ে জখম করা হয়। অন্যদিকে হামলায় আসিফের ডান পায়ের গোড়ালিসহ হাত-পায়ের বিভিন্ন স্থানে গভীর ক্ষতের সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসমানী হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

সোমবার দুপুর ১টার দিকে নগরীর বেসরকারি জালালাবাদ কলেজের সামনের রাস্তায় এ ঘটনা ঘটে। মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল আলীম তুষার দাবি করেছেন, জালালাবাদ কলেজে আধিপত্য বিস্তারের জেরে শিবির ক্যাডাররা এ ঘটনা ঘটিয়েছে। তিনি এ হামলার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন।

আহত শাহীন সিলেট সদর উপজেলার পীরপুর টুকেরবাজারের নূরুল আমিনের ছেলে; আসিফ নগরীর উপশহরের জালাল উদ্দিনের ছেলে। তারা মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাহাত তরফদার গ্রুপের অনুসারী। আসিফ জালালাবাদ কলেজ ও শাহীন মদন মোহন কলেজের ছাত্র।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুর ১টার দিকে ৫-৬টি মোটরসাইকেলে হেলমেট পরা কয়েক যুবক এসে শাহীন ও আসিফকে কুপিয়ে আহত করে পালিয়ে যায়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আসিফ বলেন, জামায়াতের রাজনীতিতে সম্পৃক্ত জালালাবাদ কলেজের দু’জন শিক্ষক এ হামলায় জড়িত। তাদের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সহযোগিতায় শিবির ক্যাডার ফাত্তাহসহ হামলাকারীরা গত রোববার ক্যাম্পাসে আসে। তাদের ক্যাম্পাসের আশপাশে ঘুরতে দেখা গেছে। কয়েকজন হামলাকারী হেলমেট পরা থাকলেও বাকিরা ছিল হেলমেট ছাড়া। কলেজের পাশ্ববর্তী মা ও শিশু হাসপাতালের সিসি ফুটেজ পরীক্ষা করলে তাদের সহজেই চিহ্নিত করা যাবে।

এদিকে দুপুরে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর ওপর হামলার জেরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে জালালাবাদ কলেজ এবং পাশ্ববর্তী সিলেট শিশু ক্লিনিক ও জেনারেল হাসপাতালে ভাংচুর চালানো হয়। এ সময় হাসপাতালের সামনে থাকা একটি অ্যাম্বুলেন্স ও একটি সিএনজি অটোরিকশা ভাংচুর করে হামলাকারীরা। তবে কারা এই হামলা চালিয়েছে সে বিষয়ে কেউ  স্পষ্ট করে কিছু বলছেন না। সিলেট শিশু ক্লিনিক ও জেনারেল হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহরিয়ার হোসেন জানান, একদল যুবক লাঠিসোটা নিয়ে এখানে হামলা ও ভাংচুর চালায়। দুপুরের অনাকাঙ্খিত ঘটনার পর পুলিশ এসে এখানকার সিসিটিভি ফুটেজ নিয়ে গেছে। এ জন্য হামলা হতে পারে বলে ধারণা করেন তিনি।

বিষয়টি নিয়ে কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গৌছুল হোসেন জানান, দুই ছাত্রলীগ কর্মীর ওপর হামলাকারীদের তারা চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে। অচিরেই ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করা হবে। রাতে ক্লিনিকে হামলার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন
মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved