শিরোনাম
 সুন্দরবনে র‍্যাবের সঙ্গে বনদস্যুদের গোলাগুলি  একের পর এক সিইও পদত্যাগ করায় ট্রাম্পের ব্যবসায়ী পরিষদ বিলুপ্ত
প্রকাশ : ০২ আগস্ট ২০১৭, ২১:৩০:২৪ | আপডেট : ০২ আগস্ট ২০১৭, ২১:৩২:৩৫

বখাটের হামলায় দৃষ্টি হারানোর শঙ্কা স্কুলছাত্রী লামিয়ার

বরিশাল ব্যুরো
ঝালকাঠিতে বখাটেদের মারধরে বাম চোখের দৃষ্টি হারাতে বসেছে স্কুলছাত্রী লামিয়া আক্তার (১২)। উত্ত্যক্তের অভিযোগ করায় গত ১৭ মে রাতে বাড়িতে হামলা চালিয়ে মারধর ও তার চোখে লোহার রড দিয়ে আঘাত করে পাঁচ বখাটে।

এ ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার ঝালকাঠির জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম জাহের আহমেদের আদালতে নালিশি অভিযোগ করেন লামিয়ার মা রাবেয়া বেগম। আদালত ওই অভিযোগ এজাহার হিসেবে নিতে সদর থানার ওসিকে আদেশ দিয়েছেন।

এদিকে স্থানীয় চিকিৎসকদের পরামর্শে লামিয়াকে ঢাকার জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হলেও অর্থাভাবে কয়েক দিন আগে বাড়ি নিয়ে আসা হয়েছে।

লামিয়া ঝালকাঠি সদর উপজেলার গাভারামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের শেওড়াপারা গ্রামের মো. খলিল হাওলাদারের মেয়ে। শেওড়াকাঠি বালিকা বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী সে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, লামিয়াকে স্থানীয় পাঁচ বখাটে মমিন হাওলাদার, নয়ন মাঝি, জুয়েল মাঝি, মো. আল আমিন ও সজীব মিয়া নিয়মিত উত্ত্যক্ত করত। বিষয়টি তার বাবা খলিল এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বখাটেরা ১৭ মে রাতে ওই ছাত্রীর বাড়িতে হামলা চালায়। তারা লামিয়ার বাবাকে মারধর করে এবং লামিয়াকে ঘর থেকে টেনেহিঁচড়ে বের করে নিয়ে চোখে লোহার রড দিয়ে আঘাত করে। এতে তার বাম চোখ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। স্থানীয় চিকিৎসকদের পরামর্শে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিউটে ভর্তি করা হয়। কিন্তু অর্থাভাবে কয়েক দিন আগে তাকে বাড়িতে ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

লামিয়ার মা রাবেয়া জানান, লামিয়া সূর্যের আলোর দিকে তাকাতে পারে না। কিছু পড়তে গেলে চোখে ঝাপসা দেখে। মামলার পর বখাটেরা তা তুলে নেওয়ার জন্য হুমকি দিচ্ছে বলে রাবেয়া অভিযোগ করেন।

ঝালকাঠি সদর থানার ওসি মো. তাজুল ইসলাম সমকালকে বলেন, ঘটনাটি তিনি শুনেছেন। তবে আদালতের আদেশ এখনও পাননি। পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেবেন।

আরও পড়ুন
মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved