শিরোনাম
 কাবুলে গাড়িবোমা হামলায় নিহত ২৪  ৪১৮ যাত্রী নিয়ে প্রথম হজ ফ্লাইট ঢাকা ছেড়েছে  ভারি বৃষ্টির সাথে পাহাড় ধসের শঙ্কা, সাগরে ৩ নম্বর সংকেত  জর্ডানে ইসরায়েলি দূতাবাসে গুলি, নিহত ২
প্রকাশ : ১৭ জুলাই ২০১৭, ১৮:০১:১০ | আপডেট : ১৭ জুলাই ২০১৭, ১৮:১৩:৩২

বর্ষায় বাঁধ ভাঙা একেবারেই সাধারণ বিষয়: পানিমন্ত্রী

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
পানিসম্পদমন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেছেন, 'সারাদেশে পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) হাজার হাজার বাঁধ রয়েছে। বর্ষা মৌসুমে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভাঙাটা একেবারেই সাধারণ বিষয়।'

সোমবার সকালে যুমনার পশ্চিম পাড়ে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার বাহুকায় পাউবোর নির্মাণাধীন আলোচিত বিকল্প রিং বাঁধের ধস পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, সিরাজগঞ্জে একটি বিকল্প রিং বাঁধ নির্মাণের কাজ হচ্ছিল, স্বাভাবিকভাবেই এটি ধসে গেছে। এখানে প্রকৌশলী বা ঠিকাদারদের কোনো ত্রুটি নেই। এমনকি তদন্ত কমিটিও গঠনের কোনো প্রয়োজন নেই।

তিনি বলেন, কোনো স্থানে বাঁধ ভাঙলে পাউবোর ঊর্ধ্বতনরা সাধারণত সরেজমিনে সেখানে ছুটে যান। পরিদর্শনের পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ক্ষতিগ্রস্তদের নির্দেশ দেন। কেউ দায়িত্বে অবহেলা-গাফিলতি করলে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকৌশলীদের সতর্ক করা হয় বা বিভাগীয়ভাবে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়। বাঁধ ভাঙলেই তদন্ত কমিটি গঠন করার বিধান নেই। এ রকম তদন্ত কমিটি গঠন করা হলে হাজারও কমিটি গঠন করতে হবে।

এ সময় ভেঙে যাওয়া বাঁধটি তিনদিন পর মেরামত করতে পারায় তিনি সেনা সদস্য এবং পাউবোর লোকজনকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। এছাড়া সিরাজগঞ্জে ভাঙনপ্রবণ অঞ্চলে ১৯ কিলোমিটার অংশে স্থায়ী বাঁধ নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে বলেও উল্লেখ করেন পানিসম্পদমন্ত্রী।

সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের উত্তরে আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, 'মিডিয়ার সকলকে লক্ষ্য রাখতে হবে বাঁধের বাইরে যারা বসবাস করছেন, যমুনার পানি বাড়লে তাদের বাড়িঘর প্লাবিত হবে, এটিই স্বাভাবিক। কিন্তু নিউজের আগে সেটিকেও মাথায় রাখতে হবে। বাঁধের ভেতরে পানি ঢুকলে সেটিকে বন্যা বলা যায়, কিন্তু বাঁধের বাইরে সেটিকে বন্যা নয়, প্লাবন।

এ প্রসঙ্গে চরের ২৭টি ইউনিয়নের লক্ষাধিক মানুষের পানিবন্ধি হয়ে মানবেতর জীবন যাপনের বিষয়টি উল্লেখ করলে মন্ত্রী তা এড়িয়ে যান।

একই মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. নজরুল ইসলাম (বীর প্রতীক), বঙ্গবন্ধু সেতুর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ৯৮ সংমিশ্রিত বিগ্রেডের কমান্ডার বিগ্রেডিয়ার জেনালের আব্দুর রউফ, পাউবোর অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পশ্চিম) মো. মোসাদ্দেক হোসেন, রাজশাহীর প্র্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ আলী, জেলা প্রশাসক কামরুন নাহার সিদ্দীকা, পুলিশ সুপার মিরাজ উদ্দিন আহম্মেদ, বগুড়ার তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী বাবুল চন্দ্র শীল, স্থানীয় নির্বাহী প্রকৌশলী সৈয়দ হাসান ইমাম, চেম্বার প্রেসিডেন্ট আবু ইউসুফ সূর্য্য, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট কে এম হোসেন আলী হাসান এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন
মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved