শিরোনাম
 আদিলুরকে ফেরত পাঠাল মালয়েশিয়া   ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন  ভারতের নতুন রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দ  আইনজীবী তালিকাভুক্তি পরীক্ষা শুক্রবার
প্রকাশ : ০২ জুলাই ২০১৭, ২৩:০০:০৪

স্বর্ণার শরীরজুড়ে গরম রডের ছেঁকা!

নেত্রকোনা প্রতিনিধি
নেত্রকোনা পৌরসভার বলাইনগুয়া গ্রামে আট বছরের গৃহকর্মী স্বর্ণা আক্তারকে টাকা চুরির অভিযোগে গরম রডের ছেঁকা দিয়ে নির্যাতন করেছে গৃহকর্তা টিটু মিয়া ও তার পরিবারের লোকজন।

নেত্রকোনা মডেল থানা পুলিশ রোববার দুপুরে স্বর্ণাকে উদ্ধার এবং টিটু মিয়া ও তার স্ত্রী নাসরিন সুলতানাকে আটক করেছে। স্বর্ণা ওই গ্রামের দিনমজুর রফিকুল ইসলামের মেয়ে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ঈদের আগের দিন টিটু মিয়ার বাসা থেকে কিছু টাকা চুরি হয়। টাকা চুরির অভিযোগে শিশু স্বর্ণা আক্তারের ওপর টিটু মিয়া, তার স্ত্রী নাসরিন সুলতানা ও ছেলে রয়েল নির্যাতন চালায়। তারা শিশুটির শরীরের বিভিন্ন স্থানে লোহার রড গরম করে ছেঁকা দেয়, হাত-পায়ের নখে সুই দিয়ে খুঁচিয়ে আহত করে এবং বাসায় আটকে রাখে। শিশুটি অচেতন হয়ে পড়লে ওষুধ খাইয়ে কিছুটা সুস্থ করে বাসার লোকজন। প্রতিবেশীরা বিষয়টি জানতে পেরে স্বর্ণার নানিকে জানায়।

এলাকাবাসীর সহযোগিতায় স্বর্ণাকে উদ্ধার করে শনিবার নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন তার নানি। এদিকে টিটু মিয়া তার ছেলে রয়েলকে ঢাকায় পাঠিয়ে দেয়। খবর পেয়ে নেত্রকোনা মডেল থানা পুলিশ রোববার দুপুরে আহত স্বর্ণাকে সদর হাসপাতাল থেকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। নির্যাতনের অভিযোগে টিটু মিয়া এবং তার স্ত্রী নাসরিন সুলতানাকে তাদের বাসা থেকে আটক করে পুলিশ।

স্বর্ণা আক্তার জানায়, সে টাকা চুরি করেনি। বাসার সবাই মিলে তাকে নির্যাতন করেছে। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে লোহার রড গরম করে  ছেঁকা দিয়েছে। তাকে পানিতে ফেলে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিল তারা।

নেত্রকোনা মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ আবু তাহের দেওয়ান জানান, স্বর্ণাকে নির্যাতনের অভিযোগে স্বামী ও স্ত্রীকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। 

আরও পড়ুন
মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved