শিরোনাম
 এক মাস কঠোর সংযমের পর এলো খুশির ঈদ  ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত  ঈদের জামাতে দেশের কল্যাণ কামনা
প্রকাশ : ১৬ জুন ২০১৭, ২১:০৬:৪৮

চট্টগ্রামে হকার-পুলিশ সংঘর্ষ, আহত ১৫

চট্টগ্রাম ব্যুরো
সড়কে বসে ব্যবসা করাকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রামে পুলিশ ও হকারদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন।

শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে নগরের নিউমার্কেট মোড়ে ঘণ্টাব্যাপী এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছোঁড়ে হকাররা। পরে পুলিশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ও টিয়ার সেল ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

সংঘর্ষে ঈদের কেনাকাটা করতে আসা লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। তারা ছোটাছুটি করতে থাকে। অনেকে কয়েকটি মার্কেটে আটকা পড়ে। ঘটনাস্থল থেকে নয়জন হকারকে আটক করেছে পুলিশ।

কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ‘হকাররা রাস্তা দখল করে ব্যবসা করায় যানজটের সৃষ্টি হয়। রমজানের আগে থেকেই তাদের বলা হয়েছে ফুটপাতে বসলেও রাস্তা দখল করে কোনভাবে ব্যবসা করা যাবে না। কিন্তু নিষেধ অমান্য করে দুপুরের পর থেকে রাস্তায় বসে ব্যবসা শুরু করে তারা। তাদের উঠে যেতে বললে পুলিশের উপর চড়াও হয় হকাররা। ইট-পাটকেল ছোড়া শুরু করে। পরে রাবার বুলেট ও টিয়ার সেল ছোঁড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে।’

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, শুক্রবার দুপুরের পর থেকে পুলিশের নিষেধ অমান্য করে হকাররা নিউ মার্কেট এলাকায় সড়কে বসে ব্যবসা শুরু করে। এসময় দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা তাদের সড়ক থেকে সরে যেতে বললে হকাররা একযোগে পুলিশের উপর হামলা চালায়। ইটপাটকেল ছোঁড়া শুরু করে। জলসা মার্কেটসহ আশপাশের কয়েকটি ভবন থেকেও পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট ছুঁড়ে তারা। এসময় পিছু হটে পুলিশ। পরে অতিরিক্ত পুলিশ এসে টিয়ার সেল ও রাবার বুলেট ছুঁড়লে পালিয়ে যায় হকাররা। ঘটনাস্থল থেকে হকার নেতা মো. কামাল হোসেন ও মো. মঞ্জুসহ নয়জন হকারকে আটক করে পুলিশ।

চট্টগ্রাম সম্মিলিত হকার্স ফেডারেশনের সভাপতি মো. মিরন হোসেন মিলন সমকালকে বলেন, ‘দ্বিতীয় রমজান থেকে ফুটপাতের সড়কমুখী দোকানগুলো বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ। অন্তত রমজানের শেষ ১০ দিন হলেও ব্যবসা করতে দেওয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে বারবার আবেদন করেছি। কিন্তু তারা কিছুতেই ব্যবসা করতে দিচ্ছে না। দুপুরের পর থেকে হকাররা বসতে চাইলে পুলিশ এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে। পরে হকাররাও পুলিশের উপর চড়াও হয়। এসময় ১৪-১৫ জন হকার আহত হয়েছে। হকাররা ঈদে বিক্রির জন্য লাখ লাখ টাকার পণ্য কিনে ফেলেছে। এখন এসব বিক্রি করতে না পারলে পথে বসা ছাড়াতো উপায় থাকবে না।’

তিনি বলেন, ‘সব হকার সংগঠনের নেতাদের নিয়ে জরুনি সভা আহ্বান করা হয়েছে। সভায় পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।’

তবে ঘটনাস্থলে গিয়ে এ হকার নেতার দাবির সত্যতা পাওয়া যায়নি। হকাররা নিউমার্কেটের মোড় থেকে আমতল পর্যন্ত সড়কের উভয় পাশে একাংশ দখল করে ব্যবসা করায় দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। সড়কে বসতে বাধা দেওয়ায় পুলিশের উপর চড়াও হয় তারা। আগে থেকেই নিউমার্কেট মোড় এলাকার উভয় পাশে পুরো ফুটপাত অবৈধভাবে দখল করে নির্বিঘ্নে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে হকাররা।

আরও পড়ুন
মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved