শিরোনাম
 জাবির ৪২ শিক্ষার্থীর জামিন  ব্লগার রাজীব হত্যা মামলায় হাইকোর্টের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ  ভাস্কর্য অপসারণের প্রতিবাদকারী ৪ জনের জামিন  খালেদার বিরুদ্ধে কয়লাখনি দুর্নীতি মামলা চলবে  সরিয়ে ফেলা ভাস্কর্য পুনঃস্থাপন অ্যানেক্স ভবনের সামনে
প্রিন্ট সংস্করণ, প্রকাশ : ২০ মে ২০১৭, ০০:২৮:১২

এই না হলে মুস্তাফিজ

ক্রীড়া প্রতিবেদক
ত্রিদেশীয় সিরিজ আর চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির উদ্দেশে বাংলাদেশ দল যেদিন ঢাকা ছেড়ে যায়, তার আগের দিনের কথা। অধিনায়ক মাশরাফি সেদিন মিরপুরে মুখোমুখি হয়েছিলেন সংবাদ সম্মেলনে। ইংলিশ ও আইরিশ কন্ডিশনে দলীয় প্রত্যাশা আর সম্ভাবনার কথার মধ্যে এক পর্যায়ে উঠে আসে মুস্তাফিজুর রহমানের প্রসঙ্গ। মাশরাফি তখন বোলিংয়ের মূল অস্ত্রটিকে নিয়ে যা বলছিলেন, তার সারমর্ম ছিল এরকম_ তাকে এখন চ্যালেঞ্জ নিতে হবে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এসেই ৪-৫ ম্যাচে ৩০ উইকেট পেয়ে যাওয়া অস্বাভাবিক। ব্যাটসম্যানরা তাকে এখন পড়তে পারছে। ভোগাচ্ছে চোটও। এখন থেকে তাকে কষ্ট করেই উইকেট নিতে হবে।

মাশরাফির সেই ভাবনা ভুল ছিল না। আবির্ভাবে যে মুস্তাফিজকে দেখা গিয়েছিল, সেই মুস্তাফিজকে পাওয়া যায়নি বিগত তিনটি সিরিজে। চোটের সঙ্গে লড়াই শেষে মাঠে ফিরেছিলেন গত বছরের শেষ সপ্তাহে। কিন্তু আগে-পরের পার্থক্য দেখা গেছে বেশ স্পষ্ট করে। ২০১৫-এর ১১ নভেম্বর খেলা ওয়ানডে ক্যারিয়ারের নবম ম্যাচে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন ৩৪ রানের বিনিময়ে। ২০১৬-এর ২৬ ডিসেম্বর যখন দশম ম্যাচটি খেলতে নামেন, নামের পাশে তখন ২ উইকেটের খরচ ৬২ রান! এর পরের ম্যাচগুলোতেও দুই-তিন উইকেট করে পেয়েছেন। ব্যাটসম্যান-বধের মূল অস্ত্র কাটারও করেছেন মাঝে মধ্যে। কিন্তু পুরো ইনিংসজুড়ে ব্যাটসম্যানদের তটস্থ করে রাখার যে বোলিং, আতঙ্ক জাগানো যে স্পেল, তা পাওয়া যায়নি ভারতের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট বা শ্রীলংকা সিরিজের সীমিত ওভারের ক্রিকেটে। মুস্তাফিজের বোলিং নিয়ে তাই বাস্তবতা মেনেই কথা বলেছিলেন মাশরাফি। কিন্তু মুস্তাফিজের সেই ছন্দহীনতা যে নিছকই সাময়িক বিরতির ছিল, আয়ারল্যান্ডে গিয়ে সেটাই প্রমাণ করে চলেছেন 'কাটার মাস্টার' তকমা পাওয়া এ বাঁহাতি। উদ্বোধনী ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে বোলিং করার সুযোগ মেলেনি। আইরিশ কন্ডিশনে প্রথমবার বোলিং করেছেন নিউজিল্যান্ড ম্যাচে। ডাবলিনে ক্লানটার্ফ মাঠে হওয়া ওই ম্যাচটিতে বাংলাদেশ হেরে যায় ৪ উইকেটে। কিন্তু ২৫৭ রানের মাঝারি পুঁজি নিয়েও যেটুকু জয়ের সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল, তা ছিল মুস্তাফিজেরই কল্যাণে। ৯ ওভার বোলিং করে ১ মেডেনসহ ৩৩ রান খরচে নেন ২ উইকেট। ডাবলিনেরই আরেক মাঠ, ম্যালাহাইডে গতকাল মুস্তাফিজের বোলিংটা হলো আরও ধারালো। এবারও করেছেন ৯ ওভার। মেডেন এবার দুটি, ওভারপ্রতি ২.৫৫ গড়ে খরচ ২৩ রান; বিনিময়ে শিকার ৪ উইকেট। সেই যে আবির্ভাব-বছরের শেষ ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন, তারপর ইনিংসে ৪ উইকেট এলো গতকালের বিকেলে।

শুধু উইকেট বেশি পাওয়ার দিক থেকে নয়, আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে মুস্তাফিজের এই বোলিং অন্য অনেক দিক থেকেও অর্জনের। আয়ারল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা তার করা ৫৪ বলের ৪৩টি থেকেই কোনো রান নিতে পারেনি। আউটও হয়েছে বিভ্রান্ত হয়ে। ওপেনার পল স্টার্লিং যে বলটিতে স্লিপে ক্যাচ দিলেন, সেটা স্রেফ কীভাবে খেলব বিভ্রান্তির কারণেই। পরে তার শিকার হয়েছেন দুই ভাই নিয়াল ও'ব্রায়েন এবং কেভিন ও'ব্রায়েনও। গ্যারি উইলসনের উইকেটটি অবশ্য আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তের সৌজন্যে পাওয়া। তবে দশ ওভার কোটা পূর্ণ করতে না পারা, বা পাঁচ উইকেট নেওয়ার সুযোগ না পাওয়ায় নিজেকে দুর্ভাগাও ভাবতে পারেন মুস্তাফিজ। তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে উইকেট-শিকারে মেতে উঠেছিলেন মাশরাফি আর সানজামুল ইসলামরাও। শ্রীলংকা সফরেও দলের সঙ্গে থেকে কোনো ম্যাচে একাদশে জায়গা হয়নি সানজামুলের। মেহেদী হাসান মিরাজের বদলি হিসেবে গতকাল সুযোগ পেয়েই তুলে নিলেন ২ উইকেট। তবে 'ছন্দ ফিরে পাওয়া'র দিক থেকে মুস্তাফিজের সঙ্গে মিল বেশি হলো মাশরাফির। বাংলাদেশ অধিনায়ক নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আগের ম্যাচে করেছিলেন ৬.৩ ওভার। গতকালও ঠিক ৬.৩ ওভারই করলেন। তবে কিউইদের বিপক্ষে যেখানে ১ উইকেটের খরচ ৫৮ রান, সেখানে ২ উইকেটের জন্য মাত্র ১৮! আরেক পেসার রুবেল হোসেনের অবশ্য উইকেট সাফল্য নেই। তবে সবুজ উইকেটে গতি তুলে খানিকটা অবদান ঠিকই রেখেছেন। যদিও সবাইকে ছাপিয়ে আসল নায়ক মুস্তাফিজই। সেই চেনা মুস্তাফিজ...।
মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved