শিরোনাম
 বিচারকদের চাকরি বিধিমালার খসড়া প্রধান বিচারপতির কাছে  বাড়ল স্বর্ণের দাম  মামলা দিয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের নাজেহাল করছে সরকার: ফখরুল  দোষারোপ করে জলাবদ্ধতার সমাধান হবে না: ওয়াসার এমডি
প্রিন্ট সংস্করণ, প্রকাশ : ১৯ মে ২০১৭, ০০:৩১:৪২

১৮ বার যোগাযোগ করে রাশিয়া-ট্রাম্প শিবির

সমকাল ডেস্ক
যুক্তরাষ্ট্রের গত বছরের প্রেসিডেন্সিয়াল নির্বাচনের আগে শেষ সাত মাস ধরে রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রচার কর্মকর্তা এবং অন্যান্য উপদেষ্টার সঙ্গে রুশ কর্মকর্তাদের কমপক্ষে ১৮ বার গোপন ফোনালাপ ও ই-মেইল চালাচালি হয়েছিল। ওই ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত বর্তমান ও সাবেক কর্মকর্তারা দু'পক্ষের মধ্যে চলা এসব যোগাযোগের কথা জানিয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে চাঞ্চল্যকর এ খবর প্রকাশ করা হয়েছে।

এই যোগাযোগের খবর সংবাদমাধ্যমে আসার পর যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই রেকর্ড করা আগের কয়েকটি যোগাযোগের ব্যাপারে খতিয়ে দেখছে। ওদিকে কংগ্রেসের তদন্তকারীরা মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ এবং ট্রাম্পের প্রচার শিবিরের সঙ্গে রাশিয়ার আঁতাতের বিষয়টি তদন্ত করছে।

আগের ছয়টি গোপন যোগাযোগের মধ্যে রয়েছে_ যুক্তরাষ্ট্রে রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত সের্গেই কিসলায়াক এবং ফ্লিনসহ ট্রাম্পের উপদেষ্টাদের কাছে করা ফোনকল। এ ছয়টি ফোনকলের সঙ্গে আছে দু'পক্ষের মধ্যকার আরও ১২টি ফোনকল এবং ই-মেইল কিংবা টেক্সট মেসেজ চালাচালির ঘটনা। বর্তমান চার মার্কিন কর্মকর্তা বলেছেন, ট্রাম্পের উপদেষ্টা ফ্লিন এবং রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত কিসলায়োকের মধ্যে কথাবার্তা আরও ত্বরান্বিত হয়েছিল ৮ নভেম্বরের পর। সে সময় তারা দু'জন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে এড়িয়ে যোগাযোগের জন্য একটি গোপন চ্যানেল চালু করা নিয়ে কথা বলেছিলেন। জানুয়ারিতে হোয়াইট হাউস প্রাথমিকভাবে গত বছরের নির্বাচনী প্রচারের সময় রাশিয়ার সঙ্গে কোনোরকম যোগাযোগের কথা

অস্বীকার করে। এরপর থেকে হোয়াইট হাউস এবং ট্রাম্পের প্রচার শিবিরের উপদেষ্টারা ওই সময় কিসলায়াক এবং ট্রাম্পের উপদেষ্টাদের মধ্যে চারটি বৈঠক হওয়ার কথা নিশ্চিত করেন।

ট্রাম্প-রাশিয়া যোগসাজশ তদন্তে সাবেক এফবিআইপ্রধান মুলার :যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ তদন্তে বিশেষ দায়িত্ব পেয়েছেন এফবিআইর সাবেক পরিচালক রবার্ট মুলার। বুধবার মুলারের নাম ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অব জাস্টিস বিভাগ। এফবিআইপ্রধান জেমস কোমি বরখাস্ত হওয়ার পর থেকেই ওই ঘটনা তদন্তে বিশেষ কাউকে নিয়োগের দাবি ওঠে। কংগ্রেসের ডেমোক্র্যাট ও কিছু রিপাবলিকান সদস্যের স্বাধীন তদন্তের দাবির মুখে মুলারকে বেছে নেওয়া হয়। মুলারকে নিয়োগে সন্তোষ জানিয়েছেন উভয়পক্ষের রাজনীতিকরা। খবর বিবিসি ও সিএনএনের। পেশায় আইনজীবী মুলার যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এফবিআইর পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেছেন পুরো এক যুগ। ২০০১ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ২০১৩ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এফবিআইর ষষ্ঠ পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন তিনি। এর আগে তিনি দেশটির ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবেও কাজ করেন। ট্রাম্প শিবির-রুশ আঁতাত তদন্তে তার নাম ঘোষণা করে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রড রসেনস্টেইন বলেছেন, বাইরে থেকে কাউকে এই তদন্তে আনার এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে 'জনস্বার্থে'।

যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর বিশ্বাস, গত বছরের শেষ দিকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফলাফল রিপাবলিকানদের পক্ষে নিতে কাজ করেছিল রাশিয়া। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করছিলেন এফবিআইপ্রধান জেমস কোমি। কিন্তু প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত সপ্তাহে কোমিকে বরখাস্ত করার পর একজন বিশেষ প্রসিকিউটর নিয়োগের দাবি জোরালো হয়ে ওঠে। এরপর বুধবার বিশেষ কাউন্সিলর হিসেবে মুলারের নাম ঘোষণা করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল। দায়িত্ব পাওয়ার পর রবার্ট মুলার বলেছেন, 'আমি নতুন এই দায়িত্ব গ্রহণ করলাম এবং আমি তা পালনে সর্বোচ্চ সচেষ্ট থাকব।'
মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved