শিরোনাম
 ঈদ যাত্রীদের ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি শুরু  স্পেনে দ্বিতীয় হামলাচেষ্টা নস্যাৎ, ৫ হামলাকারী নিহত  চর ভদ্রাসনে ২২শ' পরিবার পানিবন্দী  ট্রাকের চাকায় পিষ্ট মোটরসাইকেলের ৩ আরোহী
প্রকাশ : ২১ এপ্রিল ২০১৭, ২২:৩৫:৫৬

রমজানের আগে ভাস্কর্য সরানোর দাবি ইসলামী আন্দোলনের

সমকাল প্রতিবেদক
আসন্ন রমজানের আগেই সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে স্থাপিত ভাস্কর্যটি সরানোর দাবি জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলনের আমির ও চরমোনাইর পীর মুফতি সৈয়দ রেজাউল করীম। এ সময়ের মধ্যে ভাস্কর্য সরানো না হলে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি। ভাস্কর্য অপসারণের দাবিতে শুক্রবার বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের উত্তর গেটে ইসলামী আন্দোলন এ সমাবেশের আয়োজন করে।

গত ডিসেম্বরে 'গ্রিক দেবী' থেমিসের আদলে সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে ভাস্কর্যটি স্থাপন করা হয়। ধর্মভিত্তিক দলগুলো এ ভাস্কর্য অপসারণে আন্দোলনে নেমেছে। গত ১১ এপ্রিল আলেমদের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভাস্কর্য স্থাপনের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। এটি অপসারণের ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতির কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে মুফতি রেজাউল করীম বলেন, 'এই মূর্তি কীভাবে এলো- তা প্রধানমন্ত্রীও জানেন না। তাহলে কার সিদ্ধান্তে এটি স্থাপন করা হয়েছে? প্রধান বিচারপতির সিদ্ধান্তে?' আলেম-ওলামাদের দেওয়া প্রতিশ্রুতি রক্ষায় অবিলম্বে 'মূর্তি' অপসারণ করতে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার সিদ্ধান্তে 'মূর্তি' স্থাপিত হলে, তা তার শপথের লঙ্ঘন বলে দাবি করেন চরমোনাইর পীর। তিনি বলেন, "প্রধান বিচারপতির যদি মূর্তির প্রতি অনুরাগ থেকে থাকে, তবে তা তার ব্যক্তিগত বিষয়। তিনি জনতার ওপর 'মূর্তি' চাপিয়ে দিতে পারেন না। সংবিধান রক্ষার শপথ নিয়ে তিনি প্রধান বিচারপতি হয়েছেন; কিন্তু সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে, মূর্তি স্থাপন করে সংবিধান লঙ্ঘন করেছেন।"

চরমোনাইর পীর দাবি করেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরে বাংলাদেশের কোনো অর্জন নেই। প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের জন্য তিস্তার পানি আনতে পারেননি; কিন্তু ভারতের স্বার্থ রক্ষায় অনেক চুক্তি করেছেন। দুই দেশের মধ্যে সই হওয়া প্রতিরক্ষা সমঝোতা জনসমক্ষে প্রকাশের দাবি জানান তিনি।

সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন ইসলামী আন্দোলনের প্রেসিডিয়াম সদস্য মাওলানা মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল মাদানী, মহাসচিব মাওলানা ইউনূস আহমাদ প্রমুখ।

মহাসমাবেশের নিরাপত্তায় বায়তুল মোকাররম ও আশপাশ এলাকায় বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন ছিল। প্রস্তুত ছিল সাঁজোয়া যান ও জলকামান।

আরও পড়ুন
মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved