শিরোনাম
 ঘূর্ণিঝড় 'মোরা': চট্টগ্রাম-কক্সবাজারে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত  অস্ট্রিয়ার উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা ত্যাগ  দিনাজপুরে অটোরিকশার সাথে সংঘর্ষের পর বাস খাদে, নিহত ৩  নতুন ভ্যাট আইনে সংকট তৈরি হবে
প্রিন্ট সংস্করণ, প্রকাশ : ২১ এপ্রিল ২০১৭, ০০:০৯:৪০

লাল বাতি সংস্কৃতির অবসান

সমকাল ডেস্ক
লাল বাতি সংস্কৃতির সামনে লাল বাতি জ্বালিয়ে দিয়েছে ভারত। রাস্তাঘাটে 'ভিআইপি' কালচার বন্ধ করতে গাড়িতে লালবাতি জ্বালানো নিষিদ্ধ করেছে দেশটির সরকার। ১ মে থেকেই অ্যাম্বুলেন্স কিংবা ফায়ার সার্ভিসের মতো জরুরি সেবার যানবাহন ছাড়া অন্য কোনো গাড়িতে কেউ লাল বাতি জ্বালাতে পারবেন না। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বার্তা_ সব ভারতীয়ই ভিআইপি, কেউ আলাদা নন। অতএব, বিদায় লাল বাতি। ভারতে মন্ত্রী ও পদস্থ কর্মকর্তারা অনেকেই গাড়ির ছাদে এক ধরনের লাল বাতি জ্বালাতেন, যা থেকে বোঝা যেত তারা বেশ ভিআইপি। শুধু ভারতেই নয়, অনেক দেশেই ভিআইপি সংস্কৃতি প্রকট। যেমন বাংলাদেশে গাড়িতে লাল বাতি না থাকলেও সামনে-পেছনে পুলিশি প্রটেকশন নিয়ে অহরহ সাইরেন বা বিকট শব্দের হর্ন বাজিয়ে রাস্তাঘাটে চলাচল করেন মন্ত্রী বা ভিআইপিরা। এতে অনেক সময় যানজটসহ নানা সমস্যার সৃষ্টি হয়। এ ধরনের সমস্যার কথা বিবেচনা করেই বুধবার দুপুরে মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ঘোষণা দেন, অ্যাম্বুলেন্স, দমকল, পুলিশের মতো জরুরি পরিষেবা ছাড়া আর কোনো ভিআইপি ১ মে থেকে গাড়িতে লাল বাতি ব্যবহার করতে পারবেন না। রাষ্ট্রপতি, উপরাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী-আমলা, বিচারপতি কেউ নন। মোদি বলেন, সব ভারতীয়ই স্পেশাল, সব ভারতীয়ই ভিআইপি। এই সংস্কৃৃতি আগেই তুলে দেওয়া উচিত ছিল। এরপরই ভারতের অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি লাল বাতি বন্ধের ঘোষণা দিয়ে বলেন, যে বিধির ব্যবহার করে লাল বাতি ব্যবহার করা হয়, সেটি বাতিল করা হয়েছে। এ ঘটনার পর গাড়ি থেকে লাল বাতি সরানোর হিড়িক পড়েছে নয়াদিলি্লর মন্ত্রিপাড়ায়। ভারত সরকারের এ পদক্ষেপ থেকে শিক্ষা নিতে পারেন ভিআইপি সংস্কৃতির ধারকরা। এনডিটিভি।
মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved