শিরোনাম
 কাবুলে গাড়িবোমা হামলায় নিহত ৩৫  ৪১৮ যাত্রী নিয়ে প্রথম হজ ফ্লাইট ঢাকা ছেড়েছে  ভারি বৃষ্টির সাথে পাহাড় ধসের শঙ্কা, সাগরে ৩ নম্বর সংকেত  জর্ডানে ইসরায়েলি দূতাবাসে গুলি, নিহত ২
প্রকাশ : ১৯ এপ্রিল ২০১৭, ১৮:৫৭:১৪ | আপডেট : ১৯ এপ্রিল ২০১৭, ১৯:০৫:০৬

শিশুর সামনে থেকে বাবাকে তুলে নিয়ে হত্যার অভিযোগ

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি
রাজবাড়ীর গোয়ান্দ উপজেলায় শিশু সন্তানের সামনে থেকে এক ব্যক্তিকে তুলে নিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
 
বুধবার সকালে উপজেলার পদ্মার চর বাঘাবাড়ি এলাকা থেকে ওই জেলের মস্তক বিচ্ছিন্ন লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
 
নিহত দেলোয়ার হোসেন দিলু (৩৭) উপজেলার দেবগ্রাম ইউনিয়নের চর দেলন্দি গ্রামের বেলায়েত বেপারীর ছেলে।
 
বেলায়েত ব্যাপারী কান্নাজড়িত কণ্ঠে সমকালকে বলেন, 'যখন নৌকা থেকে দিলুকে খুনিরা ধরে নিয়ে যায়, তখন নৌকায় ঘুমিয়ে থাকা ৭ বছরের শিশুপুত্র শাকিলকে ডেকে কথা বলতে চেয়েছিল সে। কিন্তু খুনিরা তার সে কথা শোনেনি। শেষবারের মতো শিশু সন্তানের সাথে কথা বলার শেষ ইচ্ছা পূরন হতে দেয়নি খুনিরা।'
 
নিহতের স্বজনরা জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় একটি নৌকায় দিলু তার শ্যালক রহিম, ভায়রা আলাল কাজী ও ৭ বছরের শিশু শাকিলকে নিয়ে পদ্মা নদীতে মাছ শিকার করতে যান। রাত ৯টার দিকে ৭ থেকে ৮ জনের একদল স্বশস্ত্র সন্ত্রাসী আরেকটি নৌকা নিয়ে তাদের নৌকায় উঠে অস্ত্রের মুখে তাদের জিম্মি করে ফেলে।
 
নৌকায় থাকা দিলুর শ্যালক রহিম জানান, সন্ত্রাসীরা তাদেরকে জিম্মি করে নৌকাটি চরের দিকে নিয়ে যেতে বলে। এসময় তারা ভয়ে সন্ত্রাসীদের কথা মতো নৌকা চরের দিকের তীরে ভেড়ায়। সেখানে দিলুকে মুখ বেঁধে সন্ত্রাসীরা নিয়ে যায়। তখন দিলুর শিশু সন্তান শাকিল নৌকায় ছিল। যাওয়ার সময় দিলু ছেলেকে ঘুম থেকে জাগিয়ে কথা বলতে চায়। কিন্তু খুনিরা সে সময়টুকু পর্যন্ত তাকে দেয়নি।শিশুর সামনে থেকে বাবাকে তুলে নিয়ে হত্যার অভিযোগ
নিহত দেলোয়ার হোসেন দিলু- ফাইল ছবি
 
নিহত দিলুর বেলায়েত জানান, রাত ৯টার দিকে দিলু ফোন করে তাকে জানায়- সন্ত্রাসীরা তাকে ধরে নিয়ে যাচ্ছে। সে কথা শেষ করার আগেই সন্ত্রাসীরা তার মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। এ কথা শুনে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তার ছেলেকে সারা রাত খোঁজাখুজি করেন তিনি। পরদিন বুধবার সকালে পদ্মার ওপাড়ে চর বাঘাবাড়ি এলাকায় গিয়ে এক জায়গায় দিলুর মৃতদেহ ও আরেক জায়গায় তার মাথা দেখতে পান তিনি।
 
নিহত দিলুর মা ময়ুরী বেগম বিলাপ করতে করতে বলেন, ‘গাঙ্গে মাছ মেরে তিনডা পুলাপান নিয়া কোন রহমে খ্যায়া-পইরা বাঁইচা ছিল দিলু। কি অপরাধে আমার ছেলেডারে এ রহম কইর‌্যা খুন করলো ওরা? এহন পুলাপানগুনা না খাইয়া মড়ব।’
 
এ ব্যাপারে গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি মীর্জা একে আজাদ বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে দিলুর চরমপন্থীদের সাথে যোগাযোগ ছিল। তাদের মধ্যে আভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে তাকে খুন করা হয়ে থাকতে পারে।
 
তিনি জানান, লাশটি উদ্ধার করে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার জোর প্রচেষ্টা চলছে।  
আরও পড়ুন
মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved