শিরোনাম
 সুজানগরে মাছ ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা  ফের গণমাধ্যমের ওপর চড়াও ট্রাম্প  এসপানিওলকে হারিয়ে শীর্ষে বার্সা
প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল ২০১৭, ২১:১৯:০১ | আপডেট : ১৩ এপ্রিল ২০১৭, ২২:৪৪:৪৮

বর্ষবরণ শোভাযাত্রা করছে না আওয়ামী লীগ

সমকাল প্রতিবেদক
বাংলা নববর্ষবরণ উপলক্ষে এ বছর আওয়ামী লীগ শোভাযাত্রা করছে না বলে জানিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেছেন, জনগণের ভোগান্তির কথা চিন্তা করে আওয়ামী লীগ এবার পহেলা বৈশাখের র‌্যালি বাতিল করেছে।

বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

বুধবারের সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফর বিষয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বক্তব্যের জবাব দিতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফর শেষে দেশে ফেরার দিন আওয়ামী লীগের সংবর্ধনার আয়োজন বাতিল করার কথা মনে করে দিয়ে তিনি বলেন. আমাদের নেত্রীর সংবর্ধনার বড় ধরনের আয়োজন হলেও নেত্রী জানালেন, জনগণকে ভোগান্তি দিয়ে তার সংবর্ধনার প্রয়োজন নেই। একই কারণে আমরা নববর্ষের শোভাযাত্রাও বাতিল করেছি। আমরা গণভবনে নেত্রীর সঙ্গে বৈশাখী উৎসব পালন করব, বাইরে মানুষের যেন ভোগান্তি না হয়।

এর আগে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ রাজধানীর বাহাদুর শাহ পার্ক থেকে বঙ্গবন্ধু এভিনিউর দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় পর্যন্ত ওই র্যাকলির কর্মসূচি ঘোষণা করেছিল।

বুধবার দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা এই র‌্যালি  বাতিলের নির্দেশ দিয়ে গণভবনে ঘরোয়াভাবে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের কথা জানান।

প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর নিয়ে খালেদা জিয়ার বক্তব্যের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, খালেদা জিয়ার মন্তব্য উদ্ভট, হাস্যকর ও স্ববিরোধী। তিনি একদিকে বলছেন, ভারতের সঙ্গে করা চুক্তি গোপন চুক্তি। আবার বলছেন, এই চুক্তির মাধ্যমে দেশ বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে! চুক্তি যদি গোপনই হয়ে থাকে, তাহলে তিনি দেশ কেনাবেচার বিষয়টি জানলেন কীভাবে? বাংলাদেশ-ভারত চুক্তি সম্পাদনের মাধ্যমে কোথায় দেশের জাতীয় স্বার্থ, মর্যাদা ও স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব খর্ব হয়েছে- খালেদা জিয়াকে তা জাতির সামনে প্রমাণ করতে হবে। অন্যথায় তাকে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ভারত সফর অত্যন্ত কার্যকর, ফলপ্রসূ ও জাতির জন্য মর্যাদাপূর্ণ ছিল। কিন্তু খালেদা জিয়া সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ সফর সম্পর্কে গতানুগতিক মিথ্যাচার ও অন্তঃসারশূন্য বিভ্রান্তিমূলক বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন। তার বক্তব্য ছিল অজ্ঞতা ও বিকৃত তথ্যে ভরপুর, যেখানে কোনো সারমর্ম ছিল না। খালেদা জিয়ার এ বক্তব্য শুধু উদ্দেশ্যপ্রণোদিতই নয়,উস্কানিমূলক।

ওবায়দুল কাদের বলেন, জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টির অপপ্রয়াসে বিএনপির এ ধরনের অসত্য, বানোয়াট ও দূরভিসন্ধিমূলক বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। বিএনপি নেত্রীকে কোনো কিছু না জেনে, না বুঝে ‘অন্ধকারে ঢিল ছুড়ে মারার’ অপরাজনীতি থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। আওয়ামী লীগের দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গকারীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, কুমিল্লাসহ সারাদেশে দলের শৃঙ্খলাভঙ্গের সঙ্গে যারা জড়িত, তাদের ব্যাপারে কেস টু কেস ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যারা দলে শৃঙ্খলাবিরোধী কাজের জন্য পেছন থেকে মদদ জোগাচ্ছে ও উস্কানি দিচ্ছে,তাদের বিষয়েও খোঁজখবর করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদ সম্মেলনে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মুকুল বোস, আবদুর রাজ্জাক, মাহবুবউল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আহমদ হোসেন, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, এ কে এম এনামুল হক শামীম, হাবিবুর রহমান সিরাজ, ফরিদুন্নাহার লাইলী, আফজাল হোসেন, আবদুস সোবহান গোলাপ, অসীম কুমার উকিল, সুজিত রায় নন্দী, আবদুস সবুর, দেলোয়ার হোসেন, বিপ্লব বড়ূয়া, এস এম কামাল হোসেন, আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

আরও পড়ুন
মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved