শিরোনাম
 উত্তরে পানি কমছে, বাড়ছে মধ্যাঞ্চলে  রাষ্ট্রপতিকে জানানো প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব: ওবায়দুল কাদের  নেপথ্যের ষড়যন্ত্রকারী খুঁজতে কমিশন গঠনের চিন্তা চলছে: আইনমন্ত্রী  রায় নিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ নজিরবিহীন: ফখরুল
প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল ২০১৭, ২০:১৫:২৭ | আপডেট : ১৩ এপ্রিল ২০১৭, ২২:১১:০৫

শাকিবকে দেখতে হাসপাতালে অপু

সমকাল প্রতিবেদক
দেশের শীর্ষস্থানীয় চিত্রনায়ক শাকিব খান অসুস্থ। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে তাকে। সেখানে অধ্যাপক আবদুল ওয়াদুদ চৌধুরীর তত্ত্বাবধানে তার চিকিৎসা চলছে।

এদিকে সকালে শাকিবের অসুস্থতা এবং পরে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার খবর পেয়ে বিকেলে তাকে দেখতে যান স্ত্রী অপু বিশ্বাস। এ সময় চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসকে শাকিব বলেন, ‘এত কষ্ট করে এখানে আসার কী দরকার ছিল!’

ডা. আবদুল ওয়াদুদ চৌধুরী জানিয়েছেন, ‘প্রাথমিক চিকিৎসায় শাকিব খান মোটামুটি সুস্থ হয়ে উঠেছেন। তার পরও আমরা তার কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছি। চাইলে তিনি আজই বাসায় যেতে পারবেন।’

বিকেলে হাসপাতালে শাকিবকে পরিদর্শন করার পর ডেপুটি কো-অর্ডিনেটর ডা. সাজ্জাদ হোসেন সমকালকে বলেন, ‘রাত ১০টা নাগাদ একটি রিপোর্ট এলে শাকিব খানের হাসপাতালে থাকা না-থাকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

ডা. সাজ্জাদ বলেন, ‘শাকিব খান এখন ৫০৪ নম্বর কেবিনে আছেন। তিনি আমাদের অধ্যাপক ওয়াদুদ চৌধুরীর তত্ত্বাবধানে আছেন। ভর্তি হওয়ার সময় শাকিব খান আমাদের জানিয়েছেন, তার পেটের উপরিভাগে বুধবার থেকেই প্রচণ্ড ব্যথা হচ্ছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে তিনি হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আসেন। আমরা তাকে দ্রুত চিকিৎসা দিই। পেটের ব্যথা কমাতে শাকিবকে ওষুধ ও ইনজেকশন দেওয়া হয়েছে।’

এদিকে শাকিবকে দেখতে বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে হাসপাতাল যান অপু বিশ্বাস। এ সময় তিনি বোরকা পরে ছিলেন। হাসপাতালে যাওয়ার আগে দুপুরে তিনি মুঠোফোনে সমকালকে বলেন, ‘সকালে শাকিবের চাচাতো ভাই মনির আমাকে ফোন করে ওর অসুস্থতার কথা জানায়। ওর বুকে ও ঘাড়ে তীব্র ব্যথা হচ্ছে। অনেক আগে থেকেই ওর লিভারের সমস্যা রয়েছে। চিকিৎসকরা বারবার তাকে অনিয়ম করতে মানা করেছেন। কিন্তু শাকিব তা একেবারেই মানছে না। গত ১০ মাস আমি তার কাছ থেকে দূরে ছিলাম। সব কিছু মিলিয়ে খুব অনিয়ম হয়েছে ওর। আশা করছি, সামনে সব কিছু স্বাভাবিক হয়ে যাবে।’

অপু হাসপাতালের শাকিবের পাশে মিনিট দশেক অবস্থান করেন। কর্তব্যরত ডাক্তারের সঙ্গে কথাও বলেন তিনি।

হাসপাতালে শাকিবের পাশে আছেন চলচ্চিত্র নির্মাতা শামীম আহমেদ রনি। তিনি বলেন, ‘বুধবার রাত থেকেই শাকিব খান ঘাড়ে ও বুকে ব্যথা অনুভব করেন। বৃহস্পতিবার সকালে ব্যথা বেড়ে যাওয়ায় তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। অনেক আগে থেকেই লিভারের সমস্যায় ভুগছেন তিনি। এর আগেও সিঙ্গাপুরে একাধিকবার তার লিভারের চিকিৎসা হয়েছে। সম্ভবত ওই অসুখই তাকে আবার কাবু করেছে। আবার গত কয়েক দিনের মানসিক চাপও এর কারণ হতে পারে। আশা করছি, খুব শিগগিরই তিনি সুস্থ হয়ে উঠবেন।’

এরআগে বুধবার রাতে অপু বিশ্বাসের নিকেতনের বাসায় যান শাকিব। সেখানে তিনি স্ত্রী ও ছেলে আব্রাহাম খান জয়ের সঙ্গে আধাঘণ্টা সময় কাটান। এ প্রসঙ্গে অপু বলেন, ‘এখন নিজেদের ব্যক্তিগত বিষয়গুলো নিয়ে বেশি কিছু বলতে চাই না। শাকিব বুধবার খুব খুশি ছিল। আব্রাহামের সঙ্গে অনেক সময় কাটিয়েছে। ছেলের জন্য নতুন কিছু কাপড় বানাতে দিয়েছে।’

শাকিব খানের কাছের বন্ধু ও চলচ্চিত্র প্রযোজক মো. ইকবালের কাছ থেকে জানা যায়, শাকিব সুস্থ হলেই স্ত্রী ও সন্তানকে তার বাসায় নিয়ে যাবেন। যদিও এ বিষয়ে শাকিব খানের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

শাকিবের বাসায় যাওয়া সম্পর্কে অপু বলেন, ‘আমি তো সবসময়ই ওর বাসায় যাতায়াত করি। কিন্তু এবারের যাওয়া হবে একেবারেই আলাদা, একটু অন্যরকম। যেহেতু পুরো ব্যাপারটা জানাজানি হয়েছে। তাই এখন একটু ঘটা করে যাওয়ার বিষয় আছে। তবে এখন তো শাকিব অসুস্থ। হাসপাতালের চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে দেখি, তারপর শাকিবের সঙ্গে পরিকল্পনা করেই সিদ্ধান্ত নেব।’

দীর্ঘদিন আড়ালে থাকার পর গত সোমবার বিকেলে একটি টেলিভিশন চ্যানেলে ছেলে আব্রাহাম খান জয়কে নিয়ে হাজির হন দেশের শীর্ষ চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস। সেখানেই তিনি জানান, ২০০৮ সালে ১৮ এপ্রিল শাকিব খানের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। তিনি বলেন, ‘বিয়ে হয় শাকিবের ঢাকার বাসায়। দুই পরিবারের কাছের লোকজন এ বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন। শাকিবের ক্যারিয়ারের কথা চিন্তা করেই এতদিন বিষয়টি গোপন রেখেছিলাম।’

২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর কলকাতার একটি হাসপাতালে তাদের পুত্র সন্তানের জন্ম হয়। 

আরও পড়ুন
মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved