শিরোনাম
 সিএমপির লতা পারভীনের আরেক সফলতা  শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা মামলার রায় রোববার  নিখোঁজের ২ দিন পর পুকুরে মিলল ছাত্রের ক্ষতবিক্ষত লাশ
প্রকাশ : ০৪ এপ্রিল ২০১৭, ১৯:০০:০৯

২ মাস পর মামলা করলেন সেই মেয়র মিরুর স্ত্রী

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি ও শাহজাদপুর সংবাদদাতা
সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে সমকালের প্রতিনিধি আব্দুল হাকিম শিমুল গুলিবিদ্ধ হওয়ার দিনের সংঘর্ষের ঘটনায় দুই মাস পর একটি মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার শাহজাদপুর আমলি আদালতে মামলাটি করেছেন শিমুল হত্যা মামলার প্রধান আসামি সেই মেয়র হালিমুল হক মিরুর স্ত্রী।

অস্ত্র ও বিস্ফোরকদ্রব্য আইনে দুপুরে মামলাটি করেন কারাগারে থাকা জেলা আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত নেতা মিরুর স্ত্রী লুৎফুননেছা পিয়ারীর পক্ষে তার আইনজীবী অ্যাডভোকেট রফিক সরকার। এতে শাহজাদপুর পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র কাউন্সিলর নাসির উদ্দিন ও শাহজাদপুর সরকারি কলেজের সাবেক ভিপি ও বিগত পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুর রহিমসহ ১৭ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এ ছাড়া অজ্ঞাত আরও ২০০ জনকে এই মামলায় আসামি করা হয়েছে।

আমলি আদালতের মুখ্য বিচারিক হাকিম হাসিবুল হক মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য শাহজাদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশ দেন।

ওই আদালতের পেশকার আপেল মাহমুদ সমকালকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার বিবরণের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি জানান, বিগত পৌর নির্বাচনে পরাজিত আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুর রহিম দীর্ঘদিন থেকে মেয়র মিরুর বিরুদ্ধে নানা ধরনের কুৎসা রটিয়ে আসছিলেন। তারই অংশ হিসেবে গত ২ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৩ ঘটিকায় আব্দুর রহিমের নির্দেশে তারই ভাড়াটে সশস্ত্র সন্ত্রাসী পৌর এলাকায় মেয়র মিরুর বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়। ওই হামলায় সাংবাদিক শিমুল, সাহেব আলী, জহির কালু ও মানিকসহ ৫ জন গুলিবিদ্ধ হন। গুলিবিদ্ধ শিমুল পরদিন মারা যান। বাকিরা এখনও সিরাজগঞ্জ ও ঢাকায় চিকিৎসাধীন।

এ মামলার অন্য আসামিরা হলেন-উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি শেখ কাজল, মাসুদ, জাহান, জীবন, রাসেল, এরশাদ আলী, তরিকুল ইসলাম, শাহ আলম, আলম মাহমুদ, দিনার, বিপ্লব, আলামিন হোসেন, রনী এবং সেলিম।

এদিকে, এ মামলার ঘটনায় দুপুরে শাহজাদপুর ছাত্রলীগের বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা পৌর শহরে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন।

মামলার বিষয়ে বিগত পৌর নির্বাচনের প্রার্থী আব্দুর রহিম বলেন, 'গত ২ ফেব্রুয়ারির ঘটনার দিন আমি নিজেই শাহজাদপুরে ছিলাম না। বিষয়টি পুলিশ বাহিনী ও উপজেলা প্রশাসনের অনেকেই অবগত আছেন। আর তাছাড়া ঘটনার দুই মাস পর মেয়র মিরুর স্ত্রীর মামলা দায়েরের বিষয়টি আমার বোধগম্য নয়।'

এ বিষয়ে শাহজাদপুর থানার ওসি খাজা মো. গোলাম কিবরিয়া বলেন, 'শুনেছি আদালতে মিরুর স্ত্রী একটি মামলা করেছেন। কিন্তু কপি (এজাহার) এখনও হাতে পৌঁছেনি।'

প্রসঙ্গত, শাহজাদপুরে গত ২ ফেব্রুয়ারি ছাত্রলীগ নেতা বিজয় মাহমুদের সঙ্গে মেয়র মিরু ও তার দু'ভাইয়ের সংঘর্ষ বাধে। এ সময় মেয়র মিরুর ছোড়া গুলিতে সাংবাদিক শিমুল গুলিবিদ্ধ হন; পরদিন ঢাকা নেয়ার পথে তিনি মারা যান। ওই ঘটনায় শিমুলের স্ত্রী মেয়র মিরু ও তার ভাই পিন্টু-মিন্টুসহ ১৮ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা করেন। এ মামলায় এরইমধ্যে মিরু ও মিন্টুসহ ১৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মিরুর জব্দকৃত শটগান ও গুলির ব্যালেস্টিক পরীক্ষার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শিমুলের মাথায় প্রাপ্ত গুলির সঙ্গে মিরুর শটগানের গুলির হুবহু সাদৃশ্য রয়েছে।

আরও পড়ুন
মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved