শিরোনাম
 হাওরে ত্রাণ তৎপরতা জোরদার করুন: প্রধানমন্ত্রী  সারাদেশে বিএনপিকে চাঙা করতে ৫১ টিম গঠন  হাওরাঞ্চলে নতুন ঋণ বিতরণের নির্দেশনা বাংলাদেশ ব্যাংকের  মানবতাবিরোধী অপরাধ: ৩ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা
প্রিন্ট সংস্করণ, প্রকাশ : ২১ মার্চ ২০১৭, ০০:২৩:৩৪

সুদ ভর্তুকি পাবেন মাছ রফতানিকারকরা

অর্থ মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা
ওবায়দুল্লাহ রনি
রফতানিমুখী হিমায়িত চিংড়ি ও অন্যান্য মাছ প্রক্রিয়াজাতকরণ প্রতিষ্ঠানগুলোকে নগদ সহায়তার পাশাপশি সুদ ভর্তুকি দেবে সরকার। এ ধরনের প্রতিষ্ঠানের চলতি মূলধন ঋণের ৩০ শতাংশ ব্লক হিসাবে রেখে তার ওপর আগামী আট বছর তিন শতাংশ হারে ভর্তুকি দেওয়া হবে। অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ সম্প্রতি এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা সরাসরি ১৪টি ব্যাংকে পাঠিয়েছে। হিমায়িত চিংড়ি ও অন্যান্য মাছ রফতানির বিপরীতে প্রতিষ্ঠানগুলো বর্তমানে ১০ শতাংশ পর্যন্ত নগদ সহায়তা পেয়ে থাকে।

নিয়ন্ত্রক সংস্থা হিসাবে বাংলাদেশ ব্যাংক বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়ে থাকে। অনেক ক্ষেত্রে রাষ্ট্রীয় ব্যাংকগুলোতে সরকার সরকারি নির্দেশনা দিলেও বেসরকারি ব্যাংকের ক্ষেত্রে এ ধরনের নজির কম। ফলে এ নির্দেশনা আদৌ বাস্তবায়ন হবে কি-না তা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে। বিশেষ করে বেসরকারি ব্যাংকগুলো এই নির্দেশনা কার্যকর করবে কি-না তা নিয়ে দ্বিধায় রয়েছে। বিষয়টি স্পষ্টিকরণের জন্য কোনো কোনো ব্যাংক কেন্দ্রীয় ব্যাংকের দ্বারস্থ হয়েছে বলে জানা গেছে।

বাংলাদেশ ফ্রোজেন ফুডস এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে এই নির্দেশনা জারি করা হয়। নির্দেশনাটি কার্যকরের জন্য সরকারি মালিকানার সোনালী, জনতা, অগ্রণী, রূপালী ও বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের পাশাপাশি বেসরকারি খাতের এবি, ট্রাস্ট, ওয়ান, প্রাইম, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ, শাহজালাল ইসলামী, এসআইবিএল ও আল আরফাহ ইসলামী এবং বিদেশি কমার্শিয়াল ব্যাংক অব সিলনের এমডি বরাবর পাঠানো হয়।

মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় বলা হয়, রফতানিতে হিমায়িত চিংড়ি ও অন্যান্য মাছ প্রক্রিয়াজাতকরণ কারখানার চলতি মূলধন ঋণের সুদাসলে ৩০ শতাংশ ব্লকড অ্যাকাউন্টে স্থানান্তর করে তাতে এক বছরের মরেটরিয়াম বা কিস্তি মওকুফ সুবিধা দিতে হবে। ব্লক অ্যাকাউন্টে স্থানান্তরিত অংশ নতুন ঋণ হিসাবে বিবেচিত হবে, যা পরবর্তী আট বছর ত্রৈমাসিক কিস্তিতে পরিশোধের সুযোগ পাবেন গ্রাহক। এরই মধ্যে সৃষ্ট সুদবাহী ব্লক ঋণের দায় এ সুবিধার আওতায় পরিশোধ করা যাবে।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, কারখানাগুলোকে সরকার থেকে সুদ ভর্তুকি হিসাবে দেওয়া ৩ শতাংশের অবশিষ্ট সুদ সংশ্লিষ্ট রফতানিকারক কারখানাকে বহন করতে হবে। সরকারের সুদ ভর্তুকির জন্য বছরে ৯ কোটি ৪৪ লাখ টাকা ব্যয় ধরে আট বছরের জন্য ৭৫ কোটি ৪৯ লাখ টাকা বাজেটে রাখা প্রণোদনা প্যাকেজ থেকে দেওয়া হবে।
মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved