শিরোনাম
 রাজধানী ও কুষ্টিয়ায় 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত ৪  'রাজধানীতে বন্দুকযুদ্ধে নিহতরা এএসপি মিজান হত্যায় জড়িত'
প্রিন্ট সংস্করণ, প্রকাশ : ২০ মার্চ ২০১৭, ০৩:০৫:৩২

লংকাবধে সঙ্গী এক লংকান

ক্রীড়া প্রতিবেদক

রামায়ণ অনুসারে যা ধর্মরক্ষা, আধুনিক ক্রিকেটে তা 'পেশাদারিত্ব'। স্রেফ ধর্মের পক্ষে কাজ করতে গিয়ে নিজের ভাই রাবণের বিরুদ্ধে শত্রুর আচরণ করেছিলেন বিভীষণ। এখনকার এই যুগে, একই লংকায় পেশাদারিত্বের খাতিরে নিজ দেশ শ্রীলংকার পরাজয়ে কাজ করতে হলো চন্ডিকা হাথুরুসিংহেকে। লংকার মানুষ এখন বাংলাদেশ কোচকে চাইলে 'ঘরের শত্রু বিভীষণ' বলতেই পারেন!



৮২ রানের ইনিংস খেলার পর তামিম ইকবাল যখন উড়িয়ে মারতে গিয়ে আউট হলেন, ড্রেসিংরুমে তখন হাথুরুর ক্ষুব্ধ হওয়া মুখ যারা দেখেছেন; কিংবা ম্যাচ শেষ হওয়ার পর টিভি চ্যানেলের ক্যামেরার সামনে গম্ভীর স্বভাবের হাথুরু যখন হাসিমুখে কথা বলছিলেন, তখন যে কোনো লংকান তাকে শত্রুজ্ঞান করতেই পারেন! ম্যাচ জেতানোর নায়ক তামিম ইকবালও তো খানিক আগে বলে গেলেন, 'হাথুরু আমাদের প্রচণ্ডভাবে দেখভাল করেন। তাকে পাওয়াটা আমাদের জন্য বড় সৌভাগ্যের।' কলম্বোয় ঐতিহাসিক টেস্ট জয়ের পর গতকাল পুরো দলের সঙ্গে উদ্বেলিত হয়ে ওঠেন কোচ হাথুরুও। তার কথায় বরং আক্ষেপের সুরও পাওয়া গেল, কেন বাংলাদেশ আরও ভালো খেলল না। তার মতে, শুধু ১-১ সমতা নয়, বাংলাদেশ দল সিরিজও জিততে পারত, 'ছেলেরা ভালো ক্রিকেট খেলেছে। বাংলাদেশ তাদের মাইলফলকের ম্যাচ জিতেছে। এ নিয়ে আমি ভীষণ আনন্দিত। প্রথম ম্যাচে হেরে যাওয়াটা ছিল হতাশার। এ দলটি সিরিজ জেতার সামর্থ্য রাখে। প্রথম ম্যাচের পর কিছু পরিবর্তন আনলে পরের ম্যাচটা জেতা যাবে, এ বিশ্বাস ছিল।'



বাংলাদেশ দল তাদের শততম ম্যাচটি জয়ের সঙ্গে ভিন্ন একটি জয় পেয়েছেন হাথুরু নিজেও। সিরিজ শুরুর আগে হাথুরু ও শ্রীলংকান অধিনায়ক রঙ্গনা হেরাথকে নিয়ে প্রচুর আলোচনা হয়েছিল। দু'জনে নব্বইয়ের দশকের শেষ দিকে একই ক্লাবে একসঙ্গে খেলেছেন। শুধু একসঙ্গে খেলা নয়, পরবর্তী সময়ে হেরাথের ক্যারিয়ারের বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সময়েও উজ্জ্বল ভূমিকা ছিল হাথুরুর। হেরাথ যখন কলম্বোর মুরস স্পোর্টিং ক্লাবে ট্রায়াল দিতে যান, হাথুরু তখন ওই দলের অধিনায়ক কাম কোচ। ট্রায়াল দেখে হাথুরুই হেরাথকে দলে নিয়ে নেন। ওই ক্লাবে খেলার সময়ই শ্রীলংকার জাতীয় দলে সুযোগ হয় হেরাথের। তার পর হেরাথ যখন একসময় দল থেকে বাদ পড়ে যান, তখন তাকে শ্রীলংকা 'এ' দলে সুযোগ করে দেন হাথুরু। তিনিই ওই সময় 'এ' দলের দায়িত্বে। আবার ২০০৯ সালে হাথুরু যখন শ্রীলংকা জাতীয় দলের সিনিয়র অ্যাসিস্ট্যান্ট কোচ হিসেবে কাজ করছিলেন, তখন ইংল্যান্ড সিরিজের মাঝখানে হাথুরুকে জাতীয় দলে ডেকে নেওয়া হয়। নিজের ক্যারিয়ারের টার্নিং এসব মুহূর্তে হাথুরুর অবদানের কথা সব সময়ই অকপটে বলে এসেছেন হেরাথ। বাংলাদেশ সিরিজ শুরুর আগে হেরাথ বলেছিলেন, 'উনি আমাকে যতটা জানেন, তার পরিকল্পনা সম্পর্কে ততটা আমিও জানি।' হেরাথের নেতৃত্বে গল টেস্টে জয় পায় শ্রীলংকা। এবার কলম্বোতে হাথুরুর পরিকল্পনার বাস্তবায়নেই জিতল বাংলাদেশ। জয়টা তাই ব্যক্তিগতভাবে হাথুরুরও।



শুধু হাথুরুই নন, বাংলাদেশ দলের বর্তমান কোচিং স্টাফে আছেন আরও দুই লংকান- ব্যাটিং কোচ থিলান সামারাবিরা ও ট্রেনার মারিও ভিল্লাভারানে। শ্রীলংকার হারের পেছনে 'ঘরের শত্রু'দের ভূমিকা আছে বৈকি!


মন্তব্য
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : গোলাম সারওয়ার
প্রকাশক : এ কে আজাদ
ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫  ৮৮৭০১৯৫
ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১  ৮৮৭৭০১৯৬
বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০
১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বেআইনি
powered by :
Copyright © 2017. All rights reserved